News

মহান বিজয় দিবস ২০১৯

2019/12/16 12:00:00 • Posted by: Admin

ডিসেম্বরের হালকা শীতের বিকালে হালকা ঠাণ্ডা হাওয়া সেদিনও বইছিল,
শীতের বিকাল দ্রুত ফুরিয়ে সন্ধ্যা হয়ে আসছিল, লাল সূর্যটা গড়িয়ে গড়িয়ে পশ্চিমদিকে হেলে পড়ে অন্তিম আলো বিলাচ্ছিল,
গোধূলির আলতারাঙা আকাশটায় নিস্তব্ধতা চৌচির করে গানের সুরে মনের সুখে পাখিরা নীড়ে ফিরছে, অস্ত্রের ঝনঝনানিতে আঁতকে উঠবে না তাঁরা।
প্রকৃতি তাঁর মায়ার সর্বস্ব ঢেলে অপেক্ষা করছিল এক নতুন শুরুর।

একটা সই । সেই সইয়ে স্বাধীনতা নামের একটি স্বপ্নের সৃষ্টি হলো, বাংলাদেশ নামে একটি নতুন অস্তিত্বের জন্ম নিলো ধরণির বুকে।
যে সৃষ্টির পিছনে মিশে আছে লক্ষ শহীদের আশীর্বাদ আর নারীর ইজ্জত হারানোর হাহাকার। এই সবুজ ভূখণ্ড অবশেষে পিশাচের হাত থেকে রক্ষা পেলো।
পাকিস্তান নামক অভিশাপ থেকে মুক্তি এলো, স্বাধীনতা এলো সেদিন মুক্তিযুদ্ধ নামের অস্তিত্বের লড়াইয়ে বিজয় আসলেও তখনো পূর্ণ বিজয় আসেনি।
তবে বিজয় কোথায়? বিজয় আসে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যায়, বিজয় এসেছে যখন শেখ মুজিব জাতিসংঘে দাঁড়িয়ে বাংলায় ভাষণ দেন, বিজয় এসেছে যখন বাংলার ছেলে বিশ্বমাতানো বিজ্ঞানী হয়, বিজয় আসে যখন বাংলার পোশাক সারাবিশ্বে সমাদৃত হয়, বিজয় আসে যখন বাংলার প্রতিটি ঘরে শিক্ষা পৌঁছে যায়, বিজয় আসে যখন বাংলার প্রযুক্তিবিদেরা দক্ষতায় সারা বিশ্বজয় করে বেড়ায় , বিজয় আসে যখন বঙ্গবন্ধুর নামে কৃত্তিম উপগ্রহ পৃথিবী ছাড়িয়ে মহাকাশেও সদম্ভে বাংলার অস্তিত্ব ঘোষনা করে চলে, বিজয় আসে যখন বাংলার ছেলে বিশ্বসেরা হয়, বিজয় আসে রিয়াজকে আঙুল উঁচিয়ে সেই বিশ্বসেরা সাকিবের শাসানিতেও।
বাংলার এই প্রগতি অন্যকেউ ভোগ করতে পারতো, লালসবুজ পতাকাটা আজও চাঁদতাঁরা পতাকার আড়ালে ঢেকে যেত, পীড়নে পীড়নে হয়তো অস্তিত্বই থাকতো না বাংলার যদি না সেইসব সাহসী মানুষেরা একটি ১৬ই ডিসেম্বর ছিনিয়ে না আনত।


৪৮ বছর পেরিয়ে গেছে। আজ বাংলাদেশ সমৃদ্ধের পথে এগিয়ে যাচ্ছে , আর সেই পিশাচরা ঘোর সংকটে হাবুডুবু খেয়ে বাংলাকে দেখে হিংসায় জ্বলেপুরে খাক হয়ে যাচ্ছে।

যারা প্রাণের বিনিময়ে এই ভূখণ্ডটা আমাদের করে দিয়েছিলেন, আর যারা নিজ গরিমায় বাংলাকে প্রতিনিয়ত বিজয় এনে দিচ্ছেন, তাদের জন্য বিজয় দিবসে শ্রদ্ধা জানাই।